মাছের ব্যাংক : মাছের ব্যাংক ডগার্স ব্যাংক

ব্যাংকে যেমন মানুষ টাকা সঞ্চয় করে তেমনি সমুদ্রের অগভীর, ভগ্ন, শীতল ও উষ্ণস্রোতের মিলনস্থলেও মাছের মিলনমেলা বসে৷ এতে করে বিভিন্ন স্থান থেকে মাছের উন্নতমানের খাদ্য জলকীট পস্নাঙ্কটন (ফেটভর্পমভ) জমা থাকার কারণে মাছ এসে জড়ো হয় এবং বসবাস করতে থাকে৷ মাছের এরূপ জড়োস্থানকে মাছের ব্যাংক (এধ্রদধভথ ঈটভপ) অথবা মত্‍স্য ৰেত্র (এধ্রদধভথ ঐরমলভঢ) বলে৷ এরূপ একটি মত্‍স্য ব্যাংক হলো ডগার্স ব্যাংক (ঊমথথণর্র ঈটভপ)৷ এটি বিশ্বের সর্ববৃহত্‍ প্রসিদ্ধ মত্‍স্যচারণ ৰেত্র৷ এর আয়তন প্রায় ৪.৮০ লাখ বর্গকিলোমিটার এবং এর পানির গভীরতা প্রায় ২৫ থেকে ৩০ মিটার৷ এটি উত্তর-পশ্চিম ইউরোপের মত্‍স্য ৰেত্রেই অবস্থিত৷ উত্তর সাগরের মধ্য দৰিণাংশে, বৃটেনের পূর্বে, ডেনমার্কের পশ্চিমে, নরওয়ের দৰিণ-পশ্চিমে এবং নেদারল্যান্ডের উত্তরে অবস্থিত৷ ডিম্বাকৃতির এ মত্‍স্যচারণ ৰেত্রটি বৃটেনের ফ্লামবরা অনত্মরীপ হতে প্রায় ১৬০ কিমি পূর্বে এবং ডেনমার্কের পশ্চিম উপকূল হতে প্রায় ২০০ কিমি পশ্চিমে অবস্থিত৷

ডগার্স ব্যাংকের প্রায় সর্বত্রই অগভীর এবং মাছের বসবাস উপযোগী মগ্ন চড়াভূমিতে পরিপূর্ণ৷ মাছের প্রিয় খাবার পস্নাংকট বা জলকীট এখানে প্রচুর পরিমাণে জন্মে৷ উত্তর থেকে আগত শীতল স্রোত এবং উষ্ণ মহাসাগরীয় স্রোতের প্রভাবে মত্‍স্য বসবাসের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে৷ আশেপাশের দেশগুলো হতে নদীবাহিত প্রচুর আবর্জনার জন্য এখানে মত্‍স্য ব্যাংক সৃষ্টি হয়েছে৷ এ মত্‍স্য ব্যাংক থেকে বৃটেন সর্বাধিক মত্‍স্য আহরণ করে৷ তবে বেলজিয়াম, নেদারল্যান্ড, জার্মানি, ডেনমার্ক ও নরওয়ের ধীবরগণও এ অঞ্চল থেকে প্রচুর মত্‍স্য আহরণ করে৷ এখানকার ধৃত মত্‍স্যের মধ্যে ম্যাকবেল, হ্যাডক, হেরিং কড, পিলচার্ড, হ্যালিবার্ট, সোল, হেকস, পেস্নইর্স প্রধান৷ এছাড়া এ অঞ্চল হতে প্রচুর মুক্তা, প্রবাল, শঙ্খ এবং ঝিনুকও ধৃত হয়৷

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.