বিশ্বকাপ ফুটবলের মাতন : উৎসব আনন্দের ঢেউ বইছে বাংলাদেশে

বীরমুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন আহাম্মেদ : মস্কোতে অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ ফুটবল-২০১৮ জমজমাট আসর পুরোদমে এগিয়ে চলছে, এরই মধ্যে প্রথম রাউন্ড শেষে বিশ্বসেরা ১৬টি দল দ্বিতীয় পয্যায় খেলার যোগ্যতা অর্জন করে নিয়েছে, বিশ্বের সেরা ৩২টি দেশের ফুটবল টিম এই আসরে অংশ নিয়েছে, প্রথম পয্যায়ের খেলায় সবচেয়ে বড় অঘটন গত বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন জার্মানি এশিয়া থেকে প্রতিনিধিত্বকারী দল সাউথ কোরিয়ার কাছে পরাজিত হয়ে এই আসর থেকে বিদায় নেওয়া।

এবার আফ্রিকার দেশ নাইজেরিয়া, এশিয়ার জাপান, ইরান, দক্ষিন কোরিয়া ২য় রাউন্ডে যেতে না পারলেও তাদের খেলা দর্শকদেও মনে দাগ কেটেছে। এইবারের বিশ্বকাপ ফুটবলে পেলে আর ম্যারাডোনার দেশ ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা টিমের খেলায় অতিতের সেই ঐতিয্যের ধারাবাহিকতা দেখা যাচ্ছে না, তবে সমর্থকদের আশা এই দুইটি দেশ ২য় রাউন্ডে নিজেদের যোগ্যতার প্রমান রাখবে। আমাদের দেশের মানুষ আর্জেন্টিনা আর ব্রাজিল দুইধারায় বিভক্ত তবে জার্মানী, স্পেন, ইংল্যান্ডসহ অন্যান্য দেশের টিমের কিছু সমর্থক থাকলেও এই সব সমর্থকরা আবার ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনায় বিভক্ত। দক্ষিন আমেরিকার দেশসমূহের শৈল্পিক খেলা আর ইউরোপিয়ান দেশসমূহ পাওয়ার ফুটবল খেলা দর্শকরা প্রান ভরে উপভোগ করে খাকে, কখনও জয় হয় পাওয়ার ফুটবলের কখনও শৈল্পিক ফুটবলের।

তবে ইউরোপিয়ান দেশসমূহের লম্বা পাসের খেলার চেয়ে দক্ষিন আমেরিকার দেশসমূহের বিশেষ করে ব্রাজিল,আর্জেন্টিনার টিমের নিজেদের ছোট ছোট পাসে বল আদান প্রদানের মাধ্যমে গোল করার যে নান্দনিক প্রচেষ্টা চালায়, তা দশর্কদের বিমোহিত করে, তাই এই দুইটি দেশের সমর্থক বিশ্বব্যাপি ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে, তাছাড়া এই দুইদেশকে সমর্থন করার একটা ঐতিহাসিক কারন আছে তা-হলো ইউরোপিয়ানের(সাদা চামড়াওয়ালা) নাক ছিটকানো মনোভাব আর বৈশম্যমূলক আচরন। প্রতি চার বৎসর অন্তর অন্তর অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ ফুটবল বিশ্বের একটি জনপ্রিয় খেলা যা পৃথিবীর বেশীভাগ মানুষকে আনন্দে ভাসায়, খেলাপাগল মানুষকে কিছুটা সময় হলেও খেলায় মাতিয়ে রাখে,তবে মাতামাতি যেন এমন পয্যায় চলে না যায়, যা বিষাদে পরিনত হয়, এটাই আমাদের প্রত্যাসা। বিশ্বকাপ ফুটবলের একটি সাময়িক রুপ প্রকাশ করা হলো।

বিশ্বকাপ ফুটবলের আদিকথাঃ

বিভিন্ন তথ্য উপাত্তের ভিত্তিতে ধারনা করা যায় ফুটবল খেলা প্রথম শুরু করেছিল গ্রিক এবং রোমান সম্প্রদায় খ্রিঃ৩৫০সালের দিকে। প্রাচীন গ্রিক এবং রোমানরা বল দিয়ে বিভিন্ন রকমের খেলা খেলত, তার মধ্যে কিছু কিছু খেলা পা ব্যবহার করে খেলত। এই খেলাটা রাগবি ফুটবল খেলার মত ছিল। বলগুলো বাতাস দ্বারা পূর্ণ থাকত অনেকটা বেলুনের মত। ১৯৩০ সালে প্রথম ফুটবল বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম বিশ্বকাপের প্রথম দুটি ম্যাচ একসঙ্গে অনুষ্ঠিত হয়। যাতে অংশ নেয় ফ্রান্স ও মেক্সিকো এবং যুক্তরাষ্ট্র ও বেলজিইয়াম। ফ্রান্স ৪-১ এবং যুক্তরাষ্ট্র ৩-০ ব্যবধানে এতে জয়ী হয়। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম গোল করেন ফ্রান্সের লুসিয়েন লরেন্ত। ফাইনালে ৯৩,০০০ দর্শকের সামনে উরুগুয়ে আর্জেন্টিনাকে ৪-২ ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের গৌরব লাভ করে। এর ফলেই উরুগুয়ে চ্যাম্পিয়ন এবং রানার আপ আর্জেন্টিনা।

ব্রিটেন হচ্ছে আধুনিক ফুটবল খেলার প্রতিষ্ঠাতা এবং ফুটবল খেলাকে প্রতিযোগিতা পর্যায়ে উন্নীত করেছে। উল্লেখ্য যে, ১৪ শতাব্দীর আগে ফুটবল কেবল ব্রিটিশদের বিনোদনের খেলা ছিলো। ১৮৬৩ সালে কেউ কেউ ফুটবলের নিয়মাবলী নির্ধারন করার প্রস্তাব করেছেন, বহু বার আলোচনার পর অবশেষে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে যে, ফুটবল কেবল পা দিয়ে খেলা যাবে, রাগবি কেবল হাত দিয়ে খেলা যাবে। ১৮৬৩ সালে বিশ্বের প্রথম ফুটবল এসোসিয়েশন প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, ১৮৮৬ সালে ব্রিটিশ ফুটবল আনুষ্ঠানিক ক্রীড়ায় পরিণত হয়েছে। ১৯৩০ সালে প্রথম ফুটবল বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়। প্রথম বিশ্বকাপের অংশ নেয় ফ্রান্স ও মেক্সিকো এবং যুক্তরাষ্ট্র ও বেলজিয়াম। ফ্রান্স ৪-১ এবং যুক্তরাষ্ট্র ৩-০ ব্যবধানে এতে জয়ী হয়। বিশ্বকাপের ইতিহাসে প্রথম গোল করেন ফ্রান্সের লুসিয়ান লরেন্ড। ফাইনালে ৯৩,০০০ দর্শকের সামনে উরুগুয়ে আর্জেন্টিনাকে ৪-২ ব্যবধানে হারিয়ে প্রথম বিশ্বকাপ জয়ের গৌরব লাভ করে। এর ফলেই উরুগুয়ে চ্যাম্পিয়ন এবং রানার আপ হয় আর্জেন্টিনা।

বিশ্বসেরা ১০ ফুটবলারঃ

ফুটবলের সর্বকালের সেরা কে? পেলে, ম্যারাডোনা, মেসি না রোনালদো। এমন তর্ক সব সময় ফুটবল ভক্তদের মাঝে লেগেই থাকে। তবে এবার এ তর্কের কিছুটা সমাধান পাওয়া যাবে।

ইংলিশ গণমাধ্যম টোটাল স্পোর্টেক বিশ্ব ফুটবলের সর্বকালের সেরা ১০ জন ফুটবলারের রেটিংয়ের মাধ্যমে নাম প্রকাশ করেছে। তারা হলেন

১) পেলে: ৪৭ পয়েন্ট নিয়ে ফুটবল ইতিহাসে সর্বকালের সেরা ফুটবলার পেলে। এডসন আরানতেস দো নাসিমেন্তো বিশ্বজুড়ে তার আদুরে নাম পেলে। তিনবারের বিশ্বকাপ শিরোপাজয়ী এ ব্রাজিলিয়ানকে সর্বকালের সেরা ফুটবলার মানেন বোদ্ধারাও। পেশাদার ক্লাব ফুটবলে সর্বাধিক গোলের রেকর্ডটিও পেলেরই। ক্যারিয়ারের পেলের রয়েছে ১২৭৯ গোল।

২) লিওনেল মেসি: পেলের পরই মেসির অবস্থান। সমান সংখ্যক (৪৭) পয়েন্ট নিয়ে সর্বকালের সেরা ফুবলারের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন বিশ্বখ্যাত আর্জেন্টাইন ফুটবল তারকা লিওনেল মেসি

৩) ডিয়াগো ম্যারাডোনা: পেলে-মেসি থেকে মাত্র ২ পয়েন্ট কম, ৪৫ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছেন ডিয়াগো ম্যারাডোনা।

৪) জিনেদিন জিদান: সর্বকালের সেরা ফুটবলারদের একজন জিনেদিন জিদান। ম্যারাডোনা থেকে এক পয়েন্ট কম ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে তালিকায় জিদানের অবস্থান চতুর্থ।

৫) ফ্রাঞ্জ বেকেনবাউয়ার: জার্মানের অন্যতম সেরা খেলোয়াড় ফ্রাঞ্জ বেকেনবাউয়ার রয়েছেন ফুটবল ইতিহাসের সর্বকালের সেরা ১০ জনের তালিকায়। জিদানের সমান সংখ্যক পয়েন্ট, ৪৪ পয়েন্ট নিয়ে তিনি রয়েছেন পঞ্চম স্থানে।

৬) ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো: ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোও উঠে এসেছেন সর্বকালের সেরাদের তালিকা। সেরা ১০ জনের মধ্যে তার অবস্থান ষষ্ঠ। তার পয়েন্টের সংখ্যা জিদান-ফ্রাঞ্জর সমানই ৪৪।

৭) আলফ্রেডো ডি স্টেফানো: সর্বকালের সেরা ফুটবলারদের একজন তিনি। তবে দুঃখ জনক খবর হলো ইতিহাসের অন্যতম সেরা ফুটবলার হয়েও দুর্ভাগ্যজনকভাবে ডি স্টিফানোর কখনো বিশ্বকাপ ফুটবল খেলা হয়নি। তার পয়েন্টের সংখ্যা ৪১।

৮) জোহান ক্রুইফ: ফুটবল ইতিহাসে অন্যতম এক সেরা ফুটবলার। ১৯৭১,১৯৭৩ এবং ১৯৭৪ সালে সর্বমোট তিনবার তিনি ইউরোপ সেরা ফুটবলার ব্যালন ডি অর এ ভূষিত হন । রাইনাস মিশেলকে সঙ্গে নিযয়ে তিনি টোটাল ফুটবল দর্শনের সূচনা করেন।সর্বকালের সেরা ফুটবলারদের তালিকায় তার নামটি বহুলভাবে উচ্চারিত হয়। তার পয়েন্টের সংখ্যা ৪০।

৯) মাইকেল প্লাতিনি: মাইকেল প্লতিনি, ফ্রান্সের সর্বকালের সেরা খেলোযাড় তো বটেই, দেশ-কাল নির্বিশেষে সর্বকালের সেরাদেরই তিনি একজন। ৪০ পয়েন্ট নিয়ে সর্বকালের সেরাদের তালিকায় তার অবস্থান নবম।

১০) জাভি হার্নান্দেজ: সর্বকালের সেরাদের তালিকায় জাভি হার্নান্দেজের অবস্থান ১০। স্পেনিশ এ ফুটবলার বিদায় নিয়েছেন বেশ কিছুদিন আগে। ৩৮ পয়েন্ট নিয়ে তিনি আছেন পেলে-মেসি-ম্যারাডোনাদের সাথে।

আমাদের দেশের সর্বত্রই ছড়িয়ে পড়েছে মস্কো বিশ্বকাপ ফুটবলের উম্মাদনাকে এই ক্ষেত্রে ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনাকে নিয়ে উম্মাদনার মাত্রা ছাড়িয়ে যাচ্ছে।

আমরা আর কতো কাল পরের ধনে পোদ্দারী করবো, আমাদের নেই বিশ্বমানের ফুটবলার, যারাই উঠে আসছে, সঠিক দেখবালের অভাবে আবার অল্প সময়েই হারিয়ে যাচ্ছে, তাই বিশ্বকাপ খেলার মতো যোগ্যতা নেই আমাদের, এমনকি এশিয়ার মানদন্ডেও আমরা যেতে পারি নাই, শুধু আমরাই নই এই উপমহাদেশে ভারত,পাকিস্তান,নেপাল,ভুটান,মালদ্বীপ এর মতো কোন দেশই বিশ্বকাপ খেলার অবস্থানে নেই,নিকট ভবিষ্যতেও হবে বলে মনে হয় না।

ঊরং বলা চলে বাংলাদেশ দিন দিন বিশ্বমানের ফুটবলের মানদন্ড থেকে পিছিয়ে পড়ছে, এমনকি যেখানে এই অঞ্চলের অন্যান্য দেশসমূহের মধ্যে নেপাল, ভুটান, মালদ্বীপ ছোটদেশ হয়েও উন্নত করছে আর বাংলাদেশ দিন দিন পিছিয়ে পড়ছে।

একসময় বাংলাদেশে পুটবলের মাতামাতি ছিল উল্লেখ করার মতো বিশেষ কওে স্বাধীনতার পরবর্তী সময় ঢাকা ষ্টেডিয়ামে যখন মোহামেডান আর আবাহনীর মধ্যে খেলা হতো তখন ষ্টেডিয়াম উপচে পড়া দর্শক এর উপস্থিতি এখন আর কল্পনা করা যায় না।

এখন কোন প্রতিযোগিতামূলক খেলায় ষ্টেডিয়ামে হাতে গোনা গুটিকয়েক দর্শকের উপস্থিতি ফুটবলের করুনদশার জানান দেয়। এমন কি দেশের কৃতিমান ফুটবল খেলোয়াড় কাজি সালাউদ্দিনের ফুটবল ফেডারেশনের দায়িত্ব গ্রহন ও এককোটি টাকার প্রাইজমানি ঘোষনাও ফুটবলকে জাগিয়ে তুলতে ব্যর্থ হয়েছে।

এই করুনদশার জন্য অনেকের ধারনা ফুটবলে রাজনীতির অনুপ্রবেশ, যোগ্যতাহীন লোকদের কর্মকর্তা বানানো, কর্মকর্তাদের অদুর্দশিতার কারনে ফুটবল জেগে উঠছে না। তাছাড়া দুর্নীতিবাজদের ফেডারেশনে অন্তর্ভুক্তিও এর একটা কারন হতে পারে।

আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী খেলাধুলার বিকাশে খুবই আন্তরিক, তিনি চান ক্রিকেটের মতো ফুটবলও জেগে উঠুক, প্রধানমন্ত্রীর এই আন্তরিকতার সুযোগ নিয়ে অনেকেই আঙ্গুল ফুলে কলা গাছ বনে যাচ্ছেন পরিতাপের বিষয় ফুটবলের তেমন উন্নতি হচ্ছে না।

আমরা আশা করি মস্কো বিশ্বকাপ ফুটবলের এই উম্মাদনাকে কাজে লাগিযে আমাদের ফুটবলের উন্নতির বিষয়ও ভাববেন,যাতে অদূরভবিষ্যতে বাংলাদেশ বিশ্বকাপ ফুটবলের চাড়ান্ত পয্যায খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারে।সেই আশা নিয়েই মস্কো বিশ্বকাপ ফুটবলের সফল পরিসমাপ্তি কামনা করছি।

বীরমুক্তিযোদ্ধা কামাল উদ্দিন আহাম্মেদ
সম্পাদক, চেতনায় একাত্তর

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

w

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.