শ্রীনগরে ঢাকা-দোহার সড়কের বেহাল দশা

উজ্জ্বল দত্ত: শ্রীনগর উপজেলার ঢাকা-দোহার সড়কের বেহাল দশা। দীর্ঘদিন যাবত সড়কটির অবস্থা খারাপ থাকার কারণে ওই রাস্তায় যানবাহনসহ হাজার হাজার মানষের প্রতিদিন চরম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। উপজেলার রাঢ়ীখাল বালাশুর বাজার চৌরাস্তা, বাঘড়া আল আমিন পাকা ব্রীজ, তালুকদার বাড়িসহ দোহার পর্যন্ত রাস্তার বিভিন্ন জায়গায় ছোট বড় গর্তসহ খানাখন্দে পরিণত হয়েছে।

বিশেষ করে দীর্ঘদিন যাবত বালাশুর চৌরাস্তা এলাকার প্রায় ৩’শ ফুট বেহাল রাস্তার কারণে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ ৩০ হাজার মানুষের চরম দূর্ভোগ পোহানো যেন হয়ে পরেছে নিত্যদিনের সঙ্গী। অল্প বৃষ্টি হলেই রাস্তার গর্ত গুলোর মধ্যে হাঁটু পানি জমে থাকার কারণে প্রতিদিনই কোন না কোন দুর্ঘটনার কবলে পরছে ছোট বড় সব ধরনের যানবাহন। সবচেয়ে বেশী দূর্ভোগের স্বীকার হচ্ছে বৃদ্ধসহ কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রী। ওই রাস্তায় মানুষের হাঁটা চলাফেরা করাই যেন অতি কষ্টকর হয়ে পরেছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, ঢাকা-দোহার রাস্তার বালাশুর, ভাগ্যকূল, আলআমিন বাজারের সামনে ছোটবড় গর্তসহ খানাখন্দে ভরা রাস্তার বেহাল চিত্র চোখে পরে। দেখা যায় বালাশুরে আম ভর্তি একটি ট্রাকের চাকা গর্তে ফেসে আছে। তার কারণে অন্যান্য যানবাহন চলাচল করতে পারছে না। এ ধরনের চিত্র প্রায়ই দেখা যায়।

ভাগ্যকূল হরেন্দ্র লাল স্কুল এন্ড কলেজের সভাপতি মনির হোসেন মিটুল জানান, রাস্তাটির অবস্থা ভালো না। বিশেষ করে প্রধান সড়ক থেকে বিদ্যালয়ে যাতায়াতের লিংক রোডগুলোর অবস্থা এতোই বেহাল যে রিকশা চলাচলের মতো কোন অবস্থা নেই। খানাখন্দে ভরা রাস্তাগুলোতে অল্প বৃষ্টি হলেই কাঁদা জমে যায় এতে করে শিক্ষার্থীদের বইপত্রসহ জামা কাপড় নষ্ট হয়ে যাওয়া ভয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতিও কমে গেছে।

বালাশুর বাজার কমিটির সহ-সভাপতি মো. দিপু খান, সাধারণ সম্পাদক আইযূব খান, আল আমিন বাজার কমিটির সভাপতি মামুন শেখসহ অনেকে বলেন, রাস্তাটির বেহালদশার কারনে মাঝে মধ্যেই দুর্ঘটনার স্বীকার হতে হচ্ছে পথচারীদের। সোমবার রাত হতে আম বোঝাই একটি ট্রাক গর্তে চাকা ফেঁসে দুই দিন যাবত পরে রয়েছে। কিছু দিন পূর্বেও রিকশার দূর্ঘটনায় রোকসানা নামে সপ্তম শ্রেনীর এক ছাত্রীর পা ভেঙ্গে যায়। এ জনদূর্ভোগের দ্রুত সমাধানের ব্যাপারে স্থানীয়রা রাস্তাটির সংস্কারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ ও জনপ্রতিনিধিদের দৃষ্টি আর্কষন করেন।

এ বিষয়ে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরের উপ বিভাগীয় প্রকৌশলী তুহিন আল মামুন জানান, আমরা এ সমস্যা সমাধানে দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছি। সাময়িক সমাধানে ইট, সুরকী ও বালু পাঠিয়েছি। তিনি আরো বলেন, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে ৪’শত ৬৯ কোটি টাকা ব্যয়ে ঢাকা-দোহার সড়কটির কেরানীগঞ্জের কদমতলী, নবাবগঞ্জ, শ্রীনগর ও দোহারের ৭২ কিলোমিটার রাস্তার কাজ আগামী এক মাসের মধ্যে শুরু করা হবে।

নিউজজি/

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.