পিনাক-৬ লঞ্চ ডুবিক্ষতিপূরণ পায়নি নিখোঁজ ৬১ জনের পরিবার

চার বছর আগে মুন্সীগঞ্জের মাওয়া ঘাটের কাছে পদ্মায় পিনাক-৬ লঞ্চ ডুবির ঘটনার নিখোঁজ ৬১ জনের পরিবার এখনো সরকারের কাছ থেকে কোন ক্ষতিপূরণ পায়নি। চার বছর হলেও ‘কাগজপত্র ঠিক হয়নি’ বলে নিখোঁজ ৬১ জনের পরিবার ক্ষতিপূরণ পায়নি বলে জানা যায়।

মুন্সীগঞ্জ লৌহজং উপজেলার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মনির হোসেন জানান, কিছু পরিবার সরকার থেকে এখনো ক্ষতিপূরণ পায়নি, কিছু পরিবার পেয়েছে। আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু কাগজপত্র তৈরি করা বাকী থাকায় এখনো তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া সম্ভব হয়নি। বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। সবাইকেই ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে।

এদিকে, এ ঘটনার সাড়ে তিন বছরের মাথায় মামলার চার্জশিট দেয়া হয়েছে। তবে আসামিরা কেউ কারাগারে নেই। মামলায় গ্রেফতার লঞ্চের মালিক আবু বক্কর সিদ্দিক কালু ও তার ছেলে ওমর ফারুক লিমন ওই সময় গ্রেফতারের তিন মাস পর জামিনে মুক্তি পান। অন্য আসামিরা আজও গ্রেফতার হয়নি।

লৌহজং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লিয়াকত আলী জানান, মামলাটি এখন আদালতে বিচারাধীন আছে। আসামিদের দুইজন জামিনে আছে কিন্তু বাকী আসামিদের ব্যাপারে কিছু বলতে পারছি না।

২০১৪ সালের ৪ আগস্ট লঞ্চডুবির ঘটনার পরদিন বিআইডব্লিউটিএ’র পরিবহন পরিদর্শক জাহাঙ্গীর ভূঁইয়া বাদী হয়ে লৌহজং থানায় ৬ জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করেন। লঞ্চের মালিক আবু বকর সিদ্দিক কালু মিয়া ও মালিকের ছেলে ওমর ফারুক লিমন ছাড়াও ওই সময় আরো চারজনকে আসামি করা হয়। তারা হলেন, লঞ্চের পুরনো মালিক মনিরুজ্জামান খোকন, সারেং (মাস্টার) গোলাম নবী বিশ্বাস, সুখানী (গ্রিজার) ছবদর মোল্লা ও কাওড়কান্দি ঘাটের ইজারাদার আব্দুল হাই শিকদার। তবে তদন্তের পর চার্জশীট থেকে মনিরুজ্জামান খোকন ও আব্দুল হাই শিকদারের নাম বাদ দেওয়া হয়।

এ ব্যাপারে মামলার একজন তদন্ত কর্মকর্তা এস আই মো. ইমরুল জানান, নাম ঠিকানা মিল না থাকায় এ দুইজনকে মামলার চার্জশীট থেকে বাদ দেওয়া হয়েছে। তবে তদন্তে অপর দুইজন আসামি অন্তর্ভূক্ত হয়। তারা হলেন আবুল কাশেম হাওলাদার ও ইসমাইল হোসেন খান ওরফে মিনিস্টার।

লঞ্চ ডুবিতে শরীয়তপুর, মাদারীপুর, চাঁদপুর, বরিশাল, ভোলাসহ বিভিন্ন এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয় ৪৯টি লাশ। এদের মধ্যে ২২ জনের লাশ অজ্ঞাত হিসাবে দাফন করা হয়।

বিডি২৪লাইভ/

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.