আট গ্রাম পুরুষশূন্য শতাধিক টেঁটা উদ্ধার

টেঁটা ও বল্লম নিয়ে দু’পক্ষের দফায় দফায় সংঘর্ষের পর গ্রেফতার এড়াতে সিরাজদীখানের বালুরচর ইউনিয়নে ৭ থেকে ৮টি গ্রাম পুরুষশূন্য হয়ে পড়েছে। গতকাল শুক্রবার মোল্লাকান্দি, রাজনগর, খাসনগর, আকবরনগর, খাসমহল বালুরচর, আগবরনগরসহ ৮টি গ্রামে নারী-শিশু-বৃদ্ধ ব্যক্তি ছাড়া পুরুষ লোকজন পুলিশের গ্রেফতার এড়াতে আত্মগোপনে চলে গেছেন। অন্যদিকে সহিংস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশের অভিযানকালে শুক্রবার মোল্লাকান্দি গ্রাম থেকে একপক্ষের নেতা নূর হোসেন বাউলের ছেলে মিথুন বাউলকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ছাড়া পরিত্যক্ত অবস্থায় শতাধিক টেঁটা উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছেন সিরাজদীখান থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ। তিনি জানান, বালুরচরের বিভিন্ন গ্রামে পুলিশের একাধিক দল পৃথক পৃথক টহল কার্যক্রম অব্যাহত রেখে মামলার আসামি গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

গ্রামবাসী জানান, দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনার পর থেকে আতঙ্কের জনপদ বালুরচরে এখন থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে। গ্রামগুলো এখন শান্ত থাকলেও পুলিশের তৎপরতা রয়েছে। স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মধ্যস্থতায় গত ২২ জুলাই রাজনগর গ্রামের মাদ্রাসা মাঠে দু’পক্ষের মীমাংশার ১৬ দিনের মাথায় গত ৮ আগস্ট রাতে বালুরচর বাজারে আবারও দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। খবর পেয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ঘটনাস্থলে গেলে হামলা চালিয়ে পুলিশের গাড়ি ভাংচুর করা হয়। এ সময় দুই এএসআই ও এক কনস্টেবল আহত হন। এরপর থেকে বুধবার রাতভর এবং বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত আধিপত্য নিয়ে টেঁটা, বল্লম ও জুইত্যা নিয়ে দুই পক্ষ একে অপরকে ঘায়েল করতে দলবদ্ধ হয়ে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ায় লিপ্ত হলে আতঙ্কের জনপদ হয়ে ওঠে বালুরচর।

সমকাল

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.