শ্রীনগরে নোংরা পরিবেশে তৈরি হচ্ছে বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী

শ্রীনগর উপজেলায় অস্বাস্থকর নোংরা পরিবেশে তৈরী করা নিন্মমানের খাদ্য সামগ্রী ও ভোজ্য তেল প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানের সন্ধান পাওয়া গেছে। উপজেলার ভাগ্যকুল ইউনিয়নের কামারগাঁও এলাকায় স্থাপিত বিক্রমপুর ফুড প্রোডাক্টস নামক প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানটিতে তৈরী করা হচ্ছে সয়াবিন তেলসহ নানা রকম পটেটো চিপস্, রিং চিপস্, ঝাল চানাচুর, ডাল ভাঁজা, কুঁড়মুঁড়ে ট্রেস্ট্রি স্পাইজ চিপস্ নামের নানা ধরনের খাদ্য সামগ্রী। আকর্ষনীয় মোড়কে তা প্যাকেটজাত করা হচ্ছে। যা শিশু বা স্কুলের কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নজরকারে। এ সমস্ত মানহীন ও অস্বাস্থকর খাবার সামগ্রী খেয়ে শিশুদের প্রায়ই নানা রকমের স্বাস্থ্যগত সমস্যায় ভুগতে হচ্ছে বলে জানা যায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, শ্রীনগর-ভাগ্যকুল-দোহার সড়কের কামারগাঁও থেকে কয়েকশত গজ উত্তরে ঘোষ বাড়ীর পাশে নির্মিত টিনসেট ভবনটিতে গড়ে উঠেছে এই বিক্রমপুর ফুড প্রোডাক্টস প্রস্তুতকারক নামক প্রতিষ্ঠানটি। এর ভিতরে প্রবেশ করে দেখা যায় অপরিস্কার অপরিছন্ন অবস্থায় হাতের স্পর্শে তৈরী করা হচ্ছে শিশুদের লোভনীয় খাবার সামগ্রী। কাঁরখানার অপরিছ্ন্ন ফ্লোরে যত্রতত্রভাবে ফেলে রাখা হয়েছে খাবার তৈরীর বিভিন্ন উপকরণ। মানা হচ্ছে না নিরাপদ খাদ্য আইন ২০১৩ সনের কোন নীতিমালা। মানা হয়নি খাদ্য বিধিমালা ১৯৬৭। ব্যবহার করা হচ্ছে পোড়া তেল, অনিরাপদ পানি। খাদ্য সামগ্রী সংরক্ষনের জন্য নেই তাপনিয়ন্ত্রিত কোন স্টোর রুম।

দেখা যায়, কর্মচারীদের অপরিচ্ছন্ন ও নোংরা পোষাক পড়ে কাজ করতে। চিপস তৈরী করে রাখা হয়েছে নোংরা ফ্লোরে। তার পাশেই কয়েকজন মহিলা শ্রমিক কাঠের গুড়ি শুকাচ্ছে এতে করে ধুলোবালি উড়ে গিয়ে পড়ছে তৈরি করা ঐসব খাদ্য সামগ্রীতে। এ সময় প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থাকা পঞ্চম শ্রেনী পাশ বরিশালের পলাশ এগিয়ে এসে জানান, প্রতিষ্ঠানের মালিক স্বপন ঘোষ ও ম্যানেজার গোলাম রাব্বানী ঢাকায় রয়েছেন।

মুঠো ফোনে ম্যানেজার গোলাম রাব্বানীর কাছে খাদ্য সামগ্রী প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানটির অনিয়মের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি ঢাকায় মিটিংয়ে রয়েছি বলে লাইনটি কেটে দেন।

কিছুক্ষণ পরে প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার স্বপন ঘোষ মুঠো ফোনে কল করেলে উপর ক্ষিপ্ত হয়ে বলেন, অনিয়মের বিষয়টি দেখার আপনারা কে? এ সময় তিনি দম্ভ করে বলেন ঢাকায় আমার আরো কয়েকটি প্রতিষ্ঠান আছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, এ কারখানায় তৈরী করা যাবতীয় ভেজাল ও মানহীন প্রোডাক্টস ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলার পাইকারী বাজার গুলোতে বিক্রি করা হচ্ছে। অধিক লাভের আশায় দোকানীরা কিনে নেয় এসব মানহীন খাদ্য সামগ্রী।

শ্রীনগর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, বিষয়টি আমার জানা ছিল না। শিশুদের খাবার সামগ্রীতে কোন প্রকার অনিয়ম থাকলে কারখানাটির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নিউজজি/

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.