জাপানে বিএনপির ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

রাহমান মনি: দলের চেয়ারপারসন (তাদের ভাষায় দেশমাতা) জেলে থাকায় গতানুগতিকতার বাইরে এসে অত্যন্ত দুঃখভারাক্রান্ত হৃদয়ে জাপান শাখা বিএনপির আয়োজনে দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ‘বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল’ (বিএনপি) প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। ১৯৮২ সাল থেকে বেগম খালেদা জিয়া দলটির দায়িত্ব ভার গ্রহণ করেন। সেই থেকে দলের প্রতিটি প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতেই জিয়া পরিবারের উপস্থিতি দলীয় নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করেছে।

কিন্তু এই প্রথম জিয়া পরিবারের অনুপস্থিতিতে দেশে দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করতে হচ্ছে। বিভিন্ন মামলায় জর্জরিত হয়ে খালেদা জিয়া এখন নির্জন কারাগারে রয়েছেন। সরকারের রোষানলে পড়ে তারেক জিয়াও সপরিবারে দেশের বাইরে অবস্থান করছেন। কোকো ইতোমধ্যে না ফেরার দেশে চলে গেছেন। তাই তারা দুঃখভারাক্রান্ত মন নিয়ে দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করছেন।

দলের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন উপলক্ষে জাপান শাখা বিএনপি এক আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে। সহযোগিতায় ছিল জাপান শাখা বিএনপির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনসমূহ।

১৬ সেপ্টেম্বর (নির্দিষ্ট দিনে হল প্রাপ্তি সমস্যাজনিত কারণে হল না পাওয়ায়) ২০১৮ রোববার টোকিওর কিতা সিটি অউজি হোকু তোপিয়া হলে আয়োজিত আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোফাজ্জল হোসেনের সভাপতিত্বে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সাধারণ সম্পাদক মীর রেজাউল করিম রেজা এবং উপদেষ্টা কাজী এনামুল হক।

আলমগীর হোসেন মিঠুর পরিচালনায় অনুষ্ঠান শুরুর প্রারম্ভে পবিত্র কোরান তেলাওয়াত ও দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন আবুল খায়ের। দোয়া মাহফিলে খালেদা জিয়ার সুস্বাস্থ্য, দীর্ঘায়ু, কারামুক্তি, মানুষের অধিকার ফিরিয়ে আনার সংগ্রামে নিবেদিত (গুম, খুন, নির্যাতিত, বিভিন্ন মামলায় জর্জরিত) এবং দেশ ও দশের মঙ্গল কামনা করা হয়।

দিবসটির তাৎপর্যে বক্তব্য রাখেন সেলিম আহমেদ, রনি ভুইয়ান, সাইফুল ইসলাম রিয়েল, মো. জসিম, আবু তাহের, কাওসার আহমেদ, জাকির হোসেন মাসুম, মীর রেজাউল করিম রেজা, কাজী এনামুল হক, মো. মোফাজ্জল হোসেন প্রমুখ।

বক্তারা অবিলম্বে দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি, নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির দাবি জানান। খালেদা জিয়াকে ছাড়া বাংলাদেশে কোনো জাতীয় নির্বাচন হতে দেয়া হবে না বলে বক্তারা হুঁশিয়ারি প্রদান করেন।

বক্তারা, আগামী জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু ও সব দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার জন্য বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করে নির্বাচন পরিচালনাকারী নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবি জানান।

কিন্তু ফখরুদ্দীন, মইনুদ্দীনদের সহযোগিতায় আবার ক্ষমতায় ফিরে এবং ৫ জানুয়ারি ২০১৪ ভোটারবিহীন নির্বাচনে ক্ষমতা বনে যাওয়া দলটি হত্যা, গুম, লুটতরাজ করে অতীতে গড়া তাদের নিজেদের রেকর্ড ভেঙে এখন বিশ্ব রেকর্ড গড়েছে। তাই তো হঠাৎ কোটিপতি বনে যাওয়াদের মধ্যে লুটতরাজদের জন্য বাংলাদেশের নাম বিশ্বে এক নাম্বারে চলে এসেছে। আমরা জানতে চাই, এটাও গুজব, নাকি উন্নয়নের জোয়ার?

তারা আরও বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতা দখল করে নিত্যনতুন ইতিহাস বানাচ্ছে। শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুর সঙ্গে নাকি খালেদা জিয়া জড়িত। এটাও কি বিশ্বাসযোগ্য। আবার ক্ষমতা দখল করে বলবে, শেখ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুর জন্য জায়মা রহমান জড়িত ছিল। দলীয় প্রধান যদি রং হেডেড হন তাহলে এসব আজগুবি তথ্য আসতেই থাকবে। কারণ, বাবা তথ্য দিবেন আর অনুগতরা তা প্রচার কাজে নেমে পড়বেন। তারা জানতে চান, বিশ্বে এমন আর কোনো দেশ আছে কিনা, যে দেশের সরকার প্রধান সর্বোচ্চ আদালত কর্তৃক রং হেডেড ঘোষিত হয়েছেন?

বক্তারা, আগামী জাতীয় নির্বাচন সুষ্ঠু সব দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার জন্য বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ দাবি করে নির্বাচন পরিচালনাকারী নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের দাবি জানান।

তারা আরও বলেন, এই মুহূর্তে ঐক্যের কোনো বিকল্প নেই। এই মুহূর্তে আমাদের মা, গণতন্ত্রের মানসকন্যা দেশনেত্রী খালেদা জিয়ার মুক্তিই আমাদের একমাত্র লক্ষ্য হওয়া উচিত। গণতন্ত্রের মাকে জেলে রেখে গণতন্ত্র প্রহসন ছাড়া আর কিছুই নয়। সরকার এখন খালেদা জিয়ার নামের ওপর ভয় পায়। এই মুহূর্তে নিজেদের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝি দূর করে ঐক্যবদ্ধ থেকে দেশমাতা খালেদা জিয়াকে মুক্ত করাই আমাদের অন্যতম প্রধান কর্তব্য। আমাদের নেতা তারেক জিয়ার দেশে ফেরার পরিবেশ গড়তে হবে।

তারা বলেন দেশে আজ অচলাবস্থা বিরাজ করছে। তা থেকে উত্তরণের জন্য এই মুহূর্তে শহীদ জিয়াকেই সবচেয়ে বেশি মনে পড়ছে। তাই বাংলাদেশের ১৭ কোটি মানুষ প্রতীক্ষা করছে শহীদ জিয়ার উত্তরসূরি তারেক জিয়ার জন্য। একমাত্র তারেক জিয়াই কাণ্ডারি হিসেবে নেতৃত্ব দিয়ে দেশকে বর্তমানের অচলাবস্থা থেকে সঠিক পথে পরিচালিত করতে পারবেন।

rahmanmoni@kym.biglobe.ne.jp

সাপ্তাহিক

Leave a Reply

Please log in using one of these methods to post your comment:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out /  Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  Change )

Connecting to %s

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.